পানি দেশের সম্পদ , আমার -আপনার সম্পত্তি নয়

পানি না পান করে কয়দিন বাঁচতে পারবেন ? আসলে প্রশ্নটায় ভুল আছে । জিজ্ঞেস করা উচিত ছিল যে পানি পান না করে আপনি কতক্ষণ থাকতে পারবেন। আপনার পানির টেপ টা হয়ত বন্ধ করা হয় নি। আলসেমি করে বসে আছেন সোফায় তাই না ? একবার ভেবেছেন সেইসব এলাকার কথা যেখানে রোজ রোজ পানির গাড়ি এসে গ্যালন হিসেব করে পানি দিয়ে যায়। একবার আপনার নিজেকে সেই জায়গায় ভেবে দেখুন। এতো কিছু বলছি কেন ? যত কম পানি খরচ করবেন তত আপনার ভালো । অনেক জায়গায় তো ব্যবহার অনুযায়ী পানির বিল আসে। আপনি জানেন এক এক ফোঁটা পানির সাথে সাথে আপনার প্রত্যেক দিনের ঘাম ঝরানো টাকাও পড়বে । তাই এতো এতো পানি অপচয় করে কেন শুধু শুধু আপনার পকেটের টাকা খরচ করছেন। একটু সচেতন হলে কি হয় ভাই ? পকেটের টাকা পকেটেই রাখুন। আর আপনি কি জানেন যদি কখনও তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হয় তা হবে বিশুদ্ধ পানির জন্য। তাই এতো রিস্ক না নিয়ে চলুন দেখে আসি কিছু টিপস যাতে করে আমরা পানির অপচয় এবং টাকা দুটোই বাঁচাতে পারি।

১। বোতলে করে পানি খান

আপনার খাবার টেবিলে বোতলে করে পানি রাখুন আর যতটুকু দরকার ততটুকুই রাখুন। কারন একটা ব্যাপার দেখবেন যে যদি গ্লাসে করে পানি খাওয়া হয় তবে একেকজন একেক গ্লাস এ করে খাবে, তখন কিন্তু জগ ও ধুতে হবে গ্লাস ও ধুতে হবে পানি দিয়েই। আবার অনেকের ই এই অভ্যাস থাকে যে পানি হয়ত পান করবে অর্ধেক গ্লাস কিন্তু গ্লাসে করে পানি নিবে সে পুরো একগ্লাস। তাই ভেবে দেখুন।

২। গোসলের সময়

অনেকেই গোসল করতে নিলে এভাবে পানি ঢালতে থাকেন যেন আপনার বাড়ির পাশেই মহাসাগর। পানির অভাব কখনো হবেই না। যখন আপনি সাবান ব্যবহার করে ফেলেছেন তখনি পানি ঢালুন। পরিমিত পানির মধ্যে গোসল শেষ করার চেষ্টা করুন।

৩। পানির প্রবাহ কম করে রাখুন

যখন আপনি হাত-মুখ ধুতে যাবেন অথবা এমনিতে ছোট খাট কোন কাজ করতে পানি ব্যবহার করবেন তখন আপনার পানির প্রবাহ কমিয়ে রাখুন। এতে করে একেবারে এতো এতো পানি অপচয় হবে না।

৪। টেপের দিকে খেয়াল করুন

আমাদের অসচেতনতার কারনে অনেক সময় পানি ফোঁটায় ফোঁটায় পরতেই থাকে। খেয়াল রাখুন ঘুমাতে যাওয়ার আগে যাতে আপনার পানির কলটি ঠিকমত বন্ধ করা হয়। এতে করে সারারাতের পানি অপচয় রোধ করতে পারবেন।

৫। কাপড় ধোয়ার সময়

কাপড় ধুতে গেলে সবচেয়ে বেশি পানি অপচয় হয় গৃহকর্মীদের দ্বারা । অনেক সময় আপনার দ্বারাও । সব কাপড় কাচার পর একেবারে একসাথে কাপড় ধুতে পারেন। কারন একটা একটা করে ধুলে আপনার ই ক্ষতি। আবার অনেকেই কাপড় ধুতে গেলে পানির কল অনির্দিষ্ট কালের জন্য ছেড়ে রাখেন।

৬। রান্নাঘরের কাজে

রান্নাঘরে আমরা অনেক পানি খরচ করি। তাই থালা-বাসন একটা একটা করে না ধুয়ে একসাথে সব ধুবেন। সবজি অথবা ফল কিনে আনার পর একসাথেই ধুয়ে নিন। ধুতে যখন হবেই একসাথেই ধুয়ে নিন।

৭। ঘর পরিস্কার করতে

ঘর পরিস্কারের জন্য আমাদের অনেক পানি দরকার হয়। আমরা প্রায়শই যে কাজটা করি তা হচ্ছে আমরা ঘর মুছতে গেলে অর্ধেক বালতি পানি লাগলেও আমরা এক বালতি পানি ই নিই। এমনি করে ঘর পরিস্কার করতে গিয়ে আমরা রোজ অনেক পানি খরচ করি।

৮। গাড়ি ধুতে গেলে

গাড়ি ধুতে গিয়ে আমাদের যে পরিমানে পানি খরচ হয় তা দিয়ে তিন বার গোসল করা যায়। তাই যখন বৃষ্টি হয় আপনার গাড়িটি গ্যারেজের বাইরে রেখে দিন। বৃষ্টির পানি দিয়েই আপনার গাড়ি ধোয়া হয়ে যাবে।

৯। পানি নিয়ে খেলা হয়

আপনার সন্তানকে পানি নিয়ে খেলতে দিবেন না। বাচ্চারা কিছু বুঝতে পারে না বলেই তারা তাদের কাছে পানি একটি অপার আনন্দ ও খেলার জিনিস যা তারা ধরতে পছন্দ করে, খেলতে পছন্দ করে। এভাবে সে আপনার অজান্তে অনেক অনেক পানি অপচয় করে ফেলতে পারে তাই আপনার সন্তান কে বোঝান পানি কি জিনিস।

১০। বাগানে পানির ব্যবহার

বাগানে পানি দেওয়ার সময় আমরা ভাবি আজ পানি খেয়ে আমাদের গাছগুলো আমাদের বিল্ডিং এর সমান হয়ে যাবে। এতে যে পানির অপচয় হচ্ছে তা আমরা খেয়াল রাখি না। পরিমিত পানি দিন বাগানে।

mm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *